• শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:২১ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
মুজিববর্ষে আমাদের অঙ্গীকার, প্রযুক্তি এগিয়ে যাওয়ার হাতিয়ার – প্রতিমন্ত্রী পলক শাজাহানপুরে প্রধানমন্ত্রী জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ফুটবল টুর্নামেন্টের শুভ উদ্বোধন নেত্রকোনায় ট্রাকের সাথে মাছবাহী পিকআপের সংঘর্ষে তিনজন নিহত উখিয়ায় বিজিবি’র অভিযান : সাড়ে ৪ কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধার কুমিল্লার বরুড়া উপজেলা কমিটি গঠনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ জাতীয় সাংবাদিক ফোরাম (BNJF)এর প্রস্তুতি সভা ঠাকুরগাঁও সরকারি শিশু পরিবারের ১৩ শিক্ষার্থী করোনায় আক্রান্ত প্রয়াত কৃষকলীগ নেতা সরকার আলাউদ্দীনের করব জিয়ারত করলেন সাহেদুল ইসলাম আ.লীগ নেতা শরিফ ও গাড়ি চালক এরশাদুলকে দেখতে ছুটে যান রাসিক মেয়র রাজশাহীতে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত রাজশাহীতে ডিবির অভিযানে গাঁজাসহ আটক ১

আমার ধৈর্যের আর পরীক্ষা নিবেন না : শামীম ওসমান

ডেক্স নিউজ / ৪৭ Time View
Update : সোমবার, ৯ আগস্ট, ২০২১

নারায়ণগঞ্জে শ্মশানের পোড়া মাটি কবরস্থানে ফেলে ভাষাসৈনিক ও মুক্তিযোদ্ধাসহ অর্ধশতাধিক মানুষের কবর ভরাট করে ফেলার অভিযোগ উঠেছে সিটি করপোরেশনের বিরুদ্ধে। ভরাট কবরগুলোর মধ্যে স্থানীয় সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের বাবা, মা, বড় ভাই ও দাদিসহ পরিবারের পূর্বপুরুষদের কবরও রয়েছে।

এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে শ্মশানের মাটি দিয়ে ভরাটকৃত সবগুলো কবর পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার আহ্বান জানিয়ে শামীম ওসমান বলেন, এটা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের একটি চক্রান্ত। সোমবার দুপুরে নগরীর মাসদাইর এলাকায় কেন্দ্রীয় সিটি কবরস্থান পরিদর্শন করে সাংবাদিকদের কাছে বিষয়টি তুলে ধরে ক্ষোভ প্রকাশ করেন সংসদ সদস্য শামীম ওসমান।

কবরবাসীর অনেক স্বজন অভিযোগ করেন, শ্মশানের পুকুর খনন করতে গিয়ে সিটি করপোরেশন কবরস্থানের অস্তিত্ব সংকটে ফেলে দিয়েছে। পুকুরের পূর্ব পাশের সীমানাপ্রাচীর এরই মধ্যে ভেঙে পড়েছে। অনেকগুলো কবর দেবে গেছে এবং কাত হয়ে পড়ে গেছে, বেড়া ভেঙে গেছে। যেকোনো মুহূর্তে সেই কবরগুলো ধসে যেতে পারে।

শামীম ওসমান জানান, গত ২৭ জুলাই সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর প্রয়াত মা মমতাজ বেগমের কবর জিয়ারত করে কবরস্থানে স্বাভাবিক অবস্থা দেখে গেছেন। তার অভিযোগ, এরই মধ্যে সিটি করপোরেশনের নিয়োগকৃত ঠিকাদার কবরস্থানের পাশে শ্মশানের পুকুর খননসহ সংস্কার কাজ করতে গিয়ে তাঁর পরিবারের চার সদস্য ও বেশ কয়েকজন ভাষাসৈনিক এবং মুক্তিযোদ্ধাসহ অন্তত অর্ধশতাধিক কবর ভরাট করে ফেলেছে। কবরস্থানের পশ্চিম দিকে বেশ কিছু পরিমাণ জায়গায় প্রায় তিন ফুট মাটি ফেলে ভরাট করায় কবরগুলো মাটির সমতল হয়ে মিশে গেছে। ফলে কবরগুলো কয়েক ফুট নিচে দেবে গেছে। পাশাপাশি শ্মশানের মাটি কবরগুলোর ওপরে ফেলাসহ দেশের বীর সন্তান বেশ কয়েকজন ভাষাসৈনিক ও মুক্তিযোদ্ধার কবরের সাইনবোর্ড ভেঙে ফেলা হয়েছে।

বক্তব্যের একপর্যায়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে শামীম ওসমান বলেন, এই অমানুষিক কাজটি যারা করেছে তারা ভাষাসৈনিক ও মুক্তিযোদ্ধাদের অবমাননাসহ ধর্মীয় অনুভূতিতে চরম আঘাত করেছে। শামীম ওসমান বলেন, আমি একজন ব্যর্থ সন্তান যে কি-না তার বাবা-মায়ের কবর হেফাজত করতে পারেনি। কবরগুলো দ্রুত সময়ের মধ্যে পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, যারা এ কাজটি করেছেন, আল্লাহরওয়াস্তে বলছি আপনাদের। আমার ধৈর্যের আর পরীক্ষা নেবেন না। আপনারা নিজেরাও আজাবের হাত থেকে বাঁচার জন্য কবরগুলোকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে আসুন। নয়তো আল্লাহ আপনাদের মাফ করবেন না। না করলে আমি ঠিক করব। এই মাটি রাস্তার পাশেও রাখা যেত। এখানে কেন রাখা হলো। এখানে জাতির বীর সন্তান মুক্তিযোদ্ধারা শোয়া।

শামীম ওসমান বলেন, ‘আমি গাড়িতে একা একা বসেছিলাম। আমার নিশ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে। আমি সরকারকে বলতে চাই, নারায়ণগঞ্জবাসীকে বলতে চাই, দয়া করে আমার ধৈর্যের পরীক্ষা নেবেন না। আমি জানি জনগণের সাথে আমার সম্পৃক্ততা কতটুকু। এই অমানবিক কাজের ফলেই আল্লাহ আজাব দিচ্ছেন। যারা এই কাজ করেছে কর্তৃপক্ষ তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন এটাই আমার প্রত্যাশা।’ তিনি বলেন, ‘এটা টেস্ট কেস। তারা চেষ্টা করছে আমার মাথা গরম করে দেওয়ার জন্য। আমি তাদের বলতে চাই আমার মাথা গরম হবে না। আমি শুধু আল্লাহর ওপর ভরসা করি। এই সমস্ত পাপীদের আমি কেয়ার করি না।’

শামীম ওসমান বলেন, আমি সিটি করপোরেশনের কাছে অনুরোধ করব দয়া করে কবরগুলোকে আগের অবস্থায় নিয়ে আসুন। শুধু আমার পরিবারেরটা না। অন্যান্য বীর মুক্তিযোদ্ধা, ভাষাসৈনিক আছেন যারা তাদেরটাও।

মসজিদের মুয়াজ্জিন ও কবরস্থানের দেখভালের দায়িত্বে থাকা মো. জাকারিয়া বলেন, ‘এটা শ্মশানের মাটি কি-না আমি নিশ্চিত না। ঠিকাদাররা শ্মশান ও কবরস্থানের উন্নয়ন কাজ করেছে।’ তবে ঠিকাদার মো. মামুন কবরস্থানের ওপর শ্মশানের পোড়ামাটি দেওয়া ঠিক হয়নি স্বীকার করে বলেন, শ্মশানের পুকুর খনন করতে গিয়ে এ অবস্থা হয়েছে। আমরা সেই মাটি অপসারণের ব্যবস্থা করছি।

ঘটনাস্থলে থাকা নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এহসানুল হাসান নিপু বলেন, শ্মশানের পোড়া মাটি দেওয়া হয়েছে শামীম ওসমানের দাদা খান সাহেব এম ওসমান আলী, দাদি জামিলা ওসমান, বাবা আবুল খায়ের মোহাম্মদ সামসুজ্জোহা, মা নাগিনা জোহা ও বড় ভাই এ কে এম নাসিম ওসমানসহ একাধিক ভাষাসৈনিক, মুক্তিযোদ্ধা ও অনেকগুলো সাধারণ কবরে। অনেক কবরের অস্তিত্বই হারিয়ে গেছে এই পোড়া মাটিতে চাপা পড়ে। কিছু কবরের চিহ্ন রয়েছে।

এদিকে শামীম ওসমান ছাড়াও সেখানে থাকা একাধিক কবরের স্বজনরা খবর পেয়ে ছুটে এসে কবরের বিধ্বস্ত অবস্থা দেখতে পেয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন এবং এ ঘটনায় নাসিকের প্রতি তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন। কবরবাসীর অনেক স্বজন অভিযোগ করেন, শ্মশানের পুকুর খনন করতে গিয়ে সিটি করপোরেশন কবরস্থানের অস্তিত্ব সংকটে ফেলে দিয়েছে। পুকুরের পূর্বপাশের সীমানাপ্রাচীর এরই মধ্যে ভেঙে পড়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
ছবি ও নিউজ কপি করা নাজমুলের নিসেদ