• শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:০৬ পূর্বাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
বকুল খরাদীকে যোগ্য বলে মনে করেন সাধারণ মানুষরা ১২ নং রামানন্দ খাজুরা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ত্রীবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত নান্দাইলে জমি সংক্রান্ত বিরোধে একজন খুন নান্দাইলে পুকুরে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু ট্রেনের মধ্যেই ফুটফুটে বাচ্চার জন্ম দিলেন মা বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে রাসিক বালক ও বালিকা দলের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স আপ ট্রফি প্রদান বন্যা দুর্গতদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন রাসিক মেয়র লিটন পদ্মাপাড়ের পরিবেশ রক্ষা ও দর্শনার্থীদের নিরাপত্তায় বসানো হবে পুলিশ ক্যাম্প রাণীশংকৈলে সাংবাদিকের স্ত্রীর রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল রাণীশংকৈলে মাদকদ্রব্য বিশেষ অভিযানে গাঁজা ও ইয়াবাসহ গ্রেফতার ২

করোনা ঠেকাতে ভারতের সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ চায় বিএনপি

Reporter Name / ২৫ Time View
Update : রবিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২১

অনলাইন ডেস্ক :করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে প্রতিবেশী দেশ ভারতের সঙ্গে সব কটি সীমান্তপথ বন্ধ করার দাবি জানিয়েছে বিএনপি। গতকাল শনিবার এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে দলের পক্ষে এই দাবি জানিয়েছেন মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘ভারতের পশ্চিম বাংলায় সংক্রমণটা (করোনাভাইরাস) সবচেয়ে বেশি। সে জন্য আমরা মনে করি, ভারতের সঙ্গে স্থলপথে সীমান্তপথগুলো বন্ধ করা দরকার।’ তিনি বলেন, ‘বাইরে থেকে আকাশপথে আগতদের তিন দিন কোয়ারেন্টিনের কথা বলা হচ্ছে। এমনটা বিশ্বের কোথাও শুনিনি। এসব সিদ্ধান্ত দেশে করোনা পরিস্থিতি নাজুক করে ফেলেছে। লকডাউনের পর সবাই ঢাকার বাইরে চলে গেল। এখন আবার বলা হচ্ছে শপিং মল-দোকানপাট খুলে দেওয়া হবে। এসব প্রতিষ্ঠানে কর্মরতরা সবাই বাইরে চলে গিয়েছিল। তারা আবার ফিরতে শুরু করেছে। আবার ঈদের আগে তারা গ্রামে ফিরে যাবে। ফলে সারা দেশেই করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মারাত্মকভাবে বাড়বে। এ বিষয়গুলো গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করে পরিকল্পিত ও সমন্বিত সিদ্ধান্ত নেওয়া প্রয়োজন। অথচ সরকার সব লেজে-গোবরে করে ফেলেছে।’সরকার ঘোষিত প্রায় সোয়া লাখ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজের অর্ধেকই ভুক্তভোগীদের কাছে পৌঁছেনি বলে দাবি করেন ফখরুল। বিএনপির পক্ষ থেকে সাত দফা প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণার প্রস্তাব তুলে ধরে তিনি বলেন, করোনার দ্বিতীয় ধাপ মোকাবেলায় লকডাউনের ফলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দিনমজুর, পেশাজীবী ও নিম্ন আয়ের মানুষের প্রত্যেককে রাষ্ট্রীয় বিশেষ তহবিল থেকে প্রাথমিকভাবে তিন মাসের জন্য ১৫ হাজার টাকা এককালীন প্রদান, দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে সুরক্ষা সহায়তা প্যাকেজের আওতায় আনা, নিরপেক্ষভাবে দুস্থ উপকারভোগীর তালিকা প্রস্তুত করা, ক্ষতিগ্রস্ত এসএমই, প্রাতিষ্ঠানিক ও অপ্রাতিষ্ঠানিক শিল্প ও কৃষি খাতে রাষ্ট্রীয় তহবিল থেকে বিশেষ প্রণোদনা; রাজনৈতিক বিবেচনা না করে ক্ষতিগ্রস্ত শিল্পোদ্যোক্তা ও প্রবাসীদের রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে ঋণ প্রণোদনা প্রদান এবং উদ্যোক্তাদের পুঁজির ব্যবস্থা করা। একই সঙ্গে ২০২০ সালের এপ্রিলে বিএনপির পক্ষ থেকে বিভিন্ন খাতে ৮৭ হাজার কোটি টাকার প্যাকেজ প্রণোদনা প্রস্তাব যথাযথভাবে মূল্যায়ন করে দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি জানান তিনি।মহাসচিব বলেন, করোনার টিকা সংগ্রহে স্বেচ্ছাচারিতা ও নতুন অনিশ্চয়তা গোটা জাতিকে আশাহীন করে তুলেছে। শেয়ারবাজার লুটপাটে অভিযুক্ত এক ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানকে টিকা সরবরাহের একচেটিয়া সুবিধা দিতে গিয়ে আজ পুরো জাতিকে ভয়াবহ স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ফেলে দিয়েছে দুর্নীতিবাজ এই সরকার। রাশিয়া ও চীন থেকে ভ্যাকসিন সংগ্রহের চিন্তা—সেটাও এরই মধ্যে দেরি হয়ে গেছে।ফখরুল বলেন, লকডাউন শুরুর দিন থেকেই বিরোধী রাজনৈতিক নেতাকর্মী, প্রখ্যাত আলেম-উলামাসহ বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের শত শত নেতাকর্মীকে নির্বিচারে গ্রেপ্তার ও নির্যাতন করছে সরকার।ফখরুল বলেন, করোনা মোকাবেলায় বিভিন্ন দেশ তাদের জিডিপির ৫০ শতাংশ পর্যন্ত জনগণের জন্য বরাদ্দ করেছে। সেখানে জিডিপি অনুপাতে জনগণকে আর্থিক সহায়তা প্রদানের মাপকাঠিতে বাংলাদেশের অবস্থান বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় একেবারেই তলানিতে। পত্রিকায় খবর এসেছে, দেশে এবার খাদ্যের মজুদ সবচেয়ে কম, মাত্র তিন লাখ টন। অথচ থাকার কথা কমপক্ষে ১১ লাখ টন। খাদ্যমন্ত্রীও এ বিষয়ে সন্তোষজনক জবাব দিতে পারছেন না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
ছবি ও নিউজ কপি করা নাজমুলের নিসেদ