ঠিকাদারের কাছে চাঁদাদাবি ,না দেওয়ায় মারধর-কথিত সাংবাদিক গ্রেফতার


admin প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০২১, ২:২৫ পূর্বাহ্ন /
ঠিকাদারের কাছে চাঁদাদাবি ,না দেওয়ায় মারধর-কথিত সাংবাদিক গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক 

রাজশাহী নগরীতে চাঁদার দাবিতে জাবেদ আলী নামের এক ঠিকাদারকে মারধর করেছে তিনজন চিহিৃত চাঁদাবাজ। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ঠিকাদার বাদি হয়ে নগরীর রাজপাড়া থানায় তিনজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে কথিত সাংবাদিক নামধারী এক চাঁদাবাজকে গ্রেফতার করেছে।

আসামী হলো- নগরীর রাজপাড়া থানাধীন বিলশিমলা এলাকার জাহিদ, মাসুদ আলী পুলক ও আল-ইমরান। এরমধ্যে শনিবার রাতে কথিত সাংবাদিক নামধারী চাঁদাবাজ জাহিদকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে অপর দুই আসামি পুলক ও আল-ইমরান পলাতক রয়েছে।

জানতে চাইলে রাজপাড়া থানার ওসি মাজহারুল ইসলাম জানান, চাঁদা না দেয়ায় জাবেদ আলী নামের এক ঠিকাদারকে মারপিট করেছে কথিত সাংবাদিক জাহিদ ও পুলক এবং ছাত্রলীগ নেতা আল-ইমরান। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ঠিকাদার বাদি হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

পরে বিলশিমলা এলাকায় অভিযান চালিয়ে জাহিদ নামের একজন কথিত সাংবাদিক ও চিহিৃত চাঁদাবকাজকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর এক কথিত সাংবাদিক পুলক ও ছাত্রলীগ নেতা আল ইমরানকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে।

ওসি আরো বলেন, তাদের কথা শুনে মনে হচ্ছে এরাই রাজশাহীতে বড় সাংবাদিক! এরা সাংবাদিক সমাজের ভাবমর্যাদা ও সুনাম নষ্ট করছে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, এরআগে ছাত্রলীগ নেতা আল ইমরানের বিরুদ্ধে চাঁদা না পেয়ে নির্মাণ কাজের শ্রমিককে মেরে তার মাথা ফাটিয়ে দেয়ার অভিযোগ রয়েছে। নগরীর বহরমপুর শেষ মাথা এলাকায় এ ঘটনা ঘটিয়েছিল। এ নিয়ে ওই ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে নগরীর রাজপাড়া থানায় একটি মামলা হয়েছে।

অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতার নাম আল ইমরান নগর ছাত্রলীগের সদস্য। আহত শ্রমিকের নাম সোহেল। তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি ইয়াসিন আরাফাত নামের এক ব্যবসায়ীর অধীনে পাইলিং শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন।

ব্যবসায়ী ইয়াসিন আরাফাত বলেন, আমি একজন পেশাদার পাইলিং ব্যবসায়ী। বহরমপুর শেষ মাথায় একটি ভবনের পাইলিং করার কাজ করছি। গত জানুয়ারি থেকে কাজ শুরু করি। কাজ শুরুর দিন বিকেল সাড়ে ৪টায় আল ইমরানসহ অজ্ঞাতনামা ১০/১২ জন আমার কাছে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দিলে মেশিনপত্র ভেঙ্গে দেয়া হবে বলে হুমকি দেন। আমি চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে ইমরান আমাকে বিভিন্ন প্রকার হুমকি দেন এবং সাতদিনের সময় দিয়ে চলে যান।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগ নেতা আল ইমরান বলেন, আরাফাত যে কাজ করছেন তাতে তারও শেয়ার আছে। কিন্তু ইমরান তাকে টাকা দিচ্ছেন না। তাকে ফাঁকি দিতে এ ধরনের কথা বলা হচ্ছে। চাঁদা দাবি কিংবা মারধরের কোন ঘটনা ঘটেনি বলেও দাবি তার।