বসন্ত উৎসবে মেতেছে ঝিনাইদহের দেবদারু চত্বর


admin প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০২১, ১:৩২ অপরাহ্ন /
বসন্ত উৎসবে মেতেছে ঝিনাইদহের দেবদারু চত্বর

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহ

প্রকৃতিতে ঋতুরাজ বসন্ত এসে গেছে। প্রকৃতিতে শীতের রিক্ততা থাকলেও তা ভুলিয়ে দিয়েছে বসন্তের ছোঁয়া। প্রকৃতি যেন নতুন রূপে, বর্ণে বর্ণিল হয়ে বসন্তকে বরণের অপেক্ষায় ছিল। সেই অপেক্ষার অবসান হয়েছে। রোববার ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসনের আয়োজনে শহরের দেবদারু চত্বরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বসন্তবরন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সকাল ও বিকেল দুই পর্বে বিভক্ত করা হয়েছে অনুষ্ঠানসূচি। সকালের আয়োজনের মধ্যে রয়েছে সংগীত, দলীয় নৃত্য, একক নৃত্য, বসন্ত কথনপর্ব, দলীয় সংগীত, আবৃত্তি, একক আবৃত্তি এবং একক সংগীত। এর আগে সকাল নয়টা থেকেই তরুণ-তরুণীরা বসন্ত উপলক্ষে দেবদারু চত্বরে আনাগোনা শুরু করে। ছেলেরা লাল, হলুদ, বাসন্তীসহ নানা রঙের পাঞ্জাবি আর ফতুয়া পরেছেন। আর মেয়েরা এসেছেন লাল-হলুদ-বাসন্তী শাড়ি পরে, সঙ্গে খোঁপায় ফুল।

পরে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর শুরু হয় মূল পর্ব।অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহনকারী শিশু তানহা বলে, ‘মায়ের সাথে এখানে এসেছি। অনুষ্ঠানে নাচ করবো, খুবই ভালো লাগছে।’ উৎসবে অংশগ্রহণকারী শারমিন আক্তার বলেন, ‘এখানে বসন্তবরন অনুষ্ঠান হচ্ছে তাই বান্ধবীরা মিলে এসেছি সাবন্ত্রী রঙের শাড়ি পরে। খুবই মজা করছি। বিশেষ করে বসন্ত আর ভালোবাসা দিবস এক সাথে হয়ে আমাদের আনন্দটাকে আরো বাড়িয়ে দিয়েছে।’ আরেক তরুণী সাইমা বলেন, ‘খুব ভালো লাগছে। আমি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান খুব পছন্দ করি। পহেলা ফাল্গুন, পহেলা বৈশাখ এসব উৎসব আমাদের বাঙালি সংস্কৃতির অংশ। এসব উৎসব আমাদের সংস্কৃতির বহিঃ প্রকাশ ও বটে। এর মধ্য দিয়ে আমরা সবাই একত্র হওয়ার সুযোগ পাই।’ ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ বলেন, ‘এবারের বসন্তবরন অনুষ্ঠান নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে। করোনা কাটিয়ে উঠছি আমরা, এসেছে টিকা।’