• সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ১০:২১ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]

বিএনপি আমার রক্তে মিশে আছে – গাজী মোহাম্মদ হানিফ 

Reporter Name / ৩০ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ৪ মার্চ, ২০২১

হালিম সৈকত,  কুমিল্লা।।   
গাজী মোহাম্মদ হানিফ। পেশায় একজন ব্যবসায়ী ও রাজনীতিবিদ। বাড়ি তিতাস উপজেলার মাছিমপুর  গ্রাম।  বাবা নুরু মিয়া মেম্বার ছিলেন বিএনপি’র রাজনীতির সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি ছিলেন কলাকান্দি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির  মনোনীত একক প্রার্থী। বলতে গেলে তার পুরো পরিবারই বিএনপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত।  বর্তমানে গাজী হানিফ তিতাস উপজেলা জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।
পারিবারিকভাবে বিএনপি ঘরনার হানিফ ১৯৯৪ -১৯৯৫ সাল থেকে বিএনপির রাজনীতির সাথে অঙ্গাঅঙ্গিভাবে জড়িত।

তিতাস উপজেলা বিএনপি’র বর্তমান সাধারণ সম্পাদক তুমুল জনপ্রিয় নেতা ওসমান গনি ভূইয়া যখন কলাকান্দি ইউনিয়ন ছাত্রদলের সভাপতি তখন থেকেই গাজী হানিফ তার সাথে বিভিন্ন মিটিং মিছিলে অংশগ্রহণ করতেন।  আবার যখন ওসমান গণি ভূইয়া তিতাস উপজেলা জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সভাপতি ছিলেন তখনও প্রত্যেকটি দলীয় কর্মকাণ্ডে সক্রিয় অংশ গ্রহন করেছেন। হাঁটি হাঁটি পা পা করে তিনি এগিয়ে যেতে থাকলেন। সক্রিয় রাজনীতির উপহার স্বরুপ ২০১২ সালে সম্মেলনের মাধ্যমে তিতাস উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।

সংগঠনকে গতিশীল ও সফল করতে প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছেন সামনে থেকে।

গাজী হানিফ বলেন,  বিএনপি’র জাতীয় স্থায়ী কমিটির প্রভাবশালী সদস্য,  সাবেক মন্ত্রী ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন স্যারের দিকনির্দেশনায় তিতাস উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি সালাহ্উদ্দিন সরকার ও সাধারণ সম্পাদক ওসমান গণি ভূইয়ার নেতৃত্বে কাজ করতে চাই।  এজন্য আমি বলব আসুন আমরা হতাশ না হয়ে বিভক্তি ও বিভাজনের চিন্তা না করি। আমরা শহীদ জিয়ার রাজনীতিকে অনুসরণ করে বিএনপিকে আরো শক্তিশালী সংগঠনে পরিণত করে বাংলাদেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নেয়ার চেষ্টা করি। ঐক্যবদ্ধভাবে সামনের দিকে এগিয়ে যাই গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে।

আগামী ৬ মার্চ কলাকান্দি ইউনিয়ন বিএনপির কমিটি গঠনকল্পে কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে।  তিনি কলাকান্দি ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি প্রার্থী হিসেবে ইতোমধ্যে ফরম সংগ্রহ করেছেন।  তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, আশা করি দল আমাকে মূল্যায়ন করবে।  কারণ আমি সব সময় দলের প্রতি অনুগত।  দলের প্রতিটি কর্মসূচীকে সফল করতে সব সময় চেষ্টা করেছি।  দুর্দিনে দল ছেড়ে যাইনি। মামলা হামলা মোকাবেলা করে মাঠেই রয়েছি।
বাংলাদেশ জিন্দাবাদ। শহিদ জিয়া অমর হোক,  দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া জিন্দাবাদ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
ছবি ও নিউজ কপি করা নাজমুলের নিসেদ