• বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১, ০১:১৪ পূর্বাহ্ন
  • [gtranslate]

বিনম্র শ্রদ্ধায় জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের স্মরণ

Reporter Name / ২৪ Time View
Update : সোমবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০২০

জাতীয় ডেক্স

একাত্তরের শহীদ বুদ্ধিজীবীদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেছে গোটা জাতি। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের শেষ মুহূর্তে ১৪ ডিসেম্বর পাকিস্তান দখলদার বাহিনী ও তার দোসর রাজাকার, আলবদর, আলশামস মিলিতভাবে বাংলার শ্রেষ্ঠ সন্তান বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করে। সোমবার (১৪ ডিসেম্বর) মিরপুরের শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতি সৌধে ভোরের আলো ফোটার আগেই মানুষের ঢল নামে। সকাল ৭টা ১০মিনিটে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের পক্ষ থেকে তার সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এস এম শামীম উজ জামান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে তার সামরিক সচিব মেজর জেনারেল নকীব আহমেদ চৌধুরী শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তারপর জাতীয় সংসদের স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকারের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়।

এরপরই সাধারণ জনগণের জন্য এটি উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। এরপর বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং সর্বস্তরের মানুষ স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মাধ্যমে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীও শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। একে একে শ্রদ্ধা নিবেদন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ পরিবারের সদস্যরা, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি), ওয়ার্কার্স পার্টি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ), ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ, আওয়ামী যুবলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুব মহিলা লীগ, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কৃষক লীগ, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ)।  এদিকে, রায়েরবাজারের বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানাতে জনতার ঢল নামে । বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভিড় বাড়তে থাকে। তবে করোনার কারণে অন‌্য যেকোনো বারের চেয়ে ভিড় ছিলো তূলনামূলক কম। সর্বস্তরের মানুষের অশেষ শ্রদ্ধা আর ভালোবাসার অর্ঘ্যে ফুলে ফুলে ভরে ওঠে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মৃতির মিনার।
উল্লেখ্য, ঢাকার মিরপুরে ও রায়েরবাজারের বধ্যভূমিতে ১৯৭১ সালে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয় বাঙালি জাতির বিবেক ও শ্রেষ্ঠ সন্তানদের। দেশের জন্য যারা এমন বর্বর হত্যাকাণ্ডের শিকার হন তাদের স্মৃতি অম্লান করে রাখতে মিরপুর ও রায়েরবাজারে পৃথক দুটি শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করা হয়।

শহীদ বুদ্ধিজীবীর মধ্যে রয়েছেন, অধ্যাপক মুনীর চৌধুরী, ডা. আলিম চৌধুরী, অধ্যাপক মুনিরুজ্জামান, ড. ফজলে রাব্বী, সিরাজুদ্দীন হোসেন, শহীদুল্লা কায়সার, অধ্যাপক জিসি দেব, জ্যোতির্ময় গুহঠাকুরতা, অধ্যাপক সন্তোষ ভট্টাচার্য, মোফাজ্জল হায়দার চৌধুরী, সাংবাদিক খন্দকার আবু তাহের, নিজামউদ্দিন আহমেদ, এস এ মান্নান, এ এন এম গোলাম মোস্তফা, সৈয়দ নাজমুল হক, সেলিনা পারভীনসহ অনেকে।

সংবাদ ২৪ ঘন্টা/এএইচ 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
ছবি ও নিউজ কপি করা নাজমুলের নিসেদ