• সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৮:৫৭ পূর্বাহ্ন
  • [gtranslate]

‘মদনে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ’

Reporter Name / ১০ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

ফয়সাল চৌধুরী (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি

নেত্রকোণার মদনে মোটরসাইকেলের কাগজ পুলিশ চেক করার সময় তর্ক বিতর্কের ঘটনার জের ধরে শ্রমিক নেতার ভাই শরিফকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি লিটন বাঙালীর লোকজন। আজ মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারী) দুপুর ২ টায় মদন-কেন্দুয়া সড়কের সিএনজি স্ট্যান্ডে এই ঘটনাটি ঘটেছে। গুরুতর আহত অবস্থায় শরীফকে মদন হাসপাতালে জরুরী বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। তার অবস্থা আশংকাজনক বলে জানায় চিকিৎসক। পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সোমবার সন্ধ্যায় মদন-কেন্দুয়া সড়কে সিএনজি স্ট্যান্ডে গাড়ির কাগজপত্র দেখার জন্য চেকপোস্ট বসালে পুলিশ এরশাদের মোটরসাইকেল আটক করে। এ সময় এরশাদ পুলিশের সাথে তর্ক বিতর্কে জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে পাশের চায়ের দোকান থেকে উপজেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি লিটন বাঙালী ঘটনাস্থলে পৌঁছে এরশাদকে ধমক দিলে সে উত্তেজিত হয়ে লিটন বাঙালীকে অপমান করে। এতে লিটন বাঙালীর লোকজন তাকে কিল ঘুষি লাথি মারে। এ ঘটনায় শ্রমিক নেতা হাবিবুর এরশাদের পক্ষ নেয়ায় লিটন বাঙালীর লোকজন শ্রমিক নেতা হাবিবুরের অটো-রিক্সা-সিনজি শ্রমিক ইউনিয়ন অফিস ভাংচুর করে। এরই জের ধরে মঙ্গলবার মদন-কেন্দুয়া সড়কের দেওয়ান বাজার রোডে শ্রমিক নেতা হাবিবুরের ভাই শরীফকে পেয়ে লিটন বাঙালীর লোকজন রামদা দিয়ে কুপিয়ে শরীরের বিভিন্ন অংশে রক্তাক্ত জখম করে। এ ব্যাপারে উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি লিটন বাঙালী জানান, সোমবার সন্ধ্যায় কেন্দুয়া রোডে মোটরসাইকেলের কাগজ চেক করার সময় পুলিশের সাথে এরশাদের তর্ক বিতর্ক থামাতে গেলে এরশাদ আমাকে অপমান করে। এ সময় আমার লোকজন তাকে মারধর করে। এরশাদের আত্মীয় স্বজন আসলে রাতেই বিষয়টি নিষ্পত্তি হয়। সকালে শরীফের কাছে আমার ভাতিজা মোমিন তার মোবাইল ফোন ফেরত চাইলে এ মারপিটের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর হাবিবুরের লোকজন আমার বসত ঘর ভাংচুর করেছে এ ব্যাপারে শ্রমিক নেতা হাবিবুর রহমান জানান, মোটরসাইকেল ধরার সময় তর্কবির্তকের ঘটনার জের ধরে আমার ভাই শরীফকে মঙ্গলবার দুপুরে লিটন বাঙালী ও তার লোকজন কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে। তারা আমার শ্রমিক ইউনিয়নের অফিস ভাংচুর করেছে। এ ব্যাপারে মদন থানায় মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারী) বিকালে একটি অভিযোগ দায়ের করেছি। মদন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাসুদুজ্জামান জানান, এ ব্যাপারে শ্রমিক নেতা হাবিবুর মদন থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্তণে রাখতে আমি ঘটনাস্থলে আছি এবং উক্ত স্থানে অতিরিক্তি পুলিশ মোতায়েন আছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে!


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
ছবি ও নিউজ কপি করা নাজমুলের নিসেদ