ঢাকা ০৯:৫৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দুর্গাপুর পৌরসভার উপ-নির্বাচনে মেয়র হলেন আ.লীগের মিঠু 

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:০৬:২১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৬ নভেম্বর ২০২২ ১৬ বার পড়া হয়েছে

দুর্গাপুর সংবাদদাতা ###

রাজশাহীর দুর্গাপুর পৌরসভার উপ-নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী সাজেদুর রহমান মিঠু। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেতা জার্জিস হোসেন সোহেল। বুধবার (১৬ নভেম্বর) দুর্গাপুর পৌরসভায় উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। মোট ১১টি কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের সাজেদুর রহমান মিঠু (নৌকা প্রতীক) পেয়েছেন ৮ হাজার ৫৪৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেতা জার্জিস হোসেন সোহেল (জগ প্রতীক) পেয়েছেন ৩ হাজার ৬৯৪ ভোট। মোবাইল ফোন প্রতীকে ২৮২ ভোট পেয়ে তৃতীয় হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেতা মোশারফ হোসেন। চতুর্থ হয়েছেন বিএনপি নেতা জিয়াউল হক রতন। তার প্রাপ্ত ভোট ১১৮। এই নির্বাচনে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর চাইতে ৪ হাজার ৮৫৫ ভোট বেশি পেয়েছেন মিঠু। এই নির্বাচনে মোট ভোটার ছিলো ২১ হাজার ৮০৬। ভোট কাস্ট হয়েছে ১২ হাজার ৬৪৩ ভোট। রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল হোসেন সন্ধ্যায় উপজেলা পরিষদের মিনি হলরুমে নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল রানা, সহকারি রিটার্নিং কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান ও অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাজমুল হক। বুধবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে ভোট গ্রহণ করা হয়েছে। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার সংবাদ পাওয়া যায়নি বলে জানান নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

দুর্গাপুর পৌরসভার উপ-নির্বাচনে মেয়র হলেন আ.লীগের মিঠু 

আপডেট সময় : ০১:০৬:২১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৬ নভেম্বর ২০২২

দুর্গাপুর সংবাদদাতা ###

রাজশাহীর দুর্গাপুর পৌরসভার উপ-নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী সাজেদুর রহমান মিঠু। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেতা জার্জিস হোসেন সোহেল। বুধবার (১৬ নভেম্বর) দুর্গাপুর পৌরসভায় উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। মোট ১১টি কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের সাজেদুর রহমান মিঠু (নৌকা প্রতীক) পেয়েছেন ৮ হাজার ৫৪৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেতা জার্জিস হোসেন সোহেল (জগ প্রতীক) পেয়েছেন ৩ হাজার ৬৯৪ ভোট। মোবাইল ফোন প্রতীকে ২৮২ ভোট পেয়ে তৃতীয় হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেতা মোশারফ হোসেন। চতুর্থ হয়েছেন বিএনপি নেতা জিয়াউল হক রতন। তার প্রাপ্ত ভোট ১১৮। এই নির্বাচনে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর চাইতে ৪ হাজার ৮৫৫ ভোট বেশি পেয়েছেন মিঠু। এই নির্বাচনে মোট ভোটার ছিলো ২১ হাজার ৮০৬। ভোট কাস্ট হয়েছে ১২ হাজার ৬৪৩ ভোট। রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল হোসেন সন্ধ্যায় উপজেলা পরিষদের মিনি হলরুমে নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল রানা, সহকারি রিটার্নিং কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান ও অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাজমুল হক। বুধবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে ভোট গ্রহণ করা হয়েছে। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার সংবাদ পাওয়া যায়নি বলে জানান নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।