• সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ০৬:৪৯ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
নান্দাইল প্রেসক্লাব পদক ২০২২ পেলেন আজকের পত্রিকার সাংবাদিক মিন্টু মিয়া ডিমলা বাসীকে ”ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা” জানিয়েছেন ওসি লাইছুর রহমান তিতাসে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র মৎস্যজীবী জেলে সমিতির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল কুমিল্লা কলেজ থিয়েটারের একযুগ পূর্তিতে চাঁদ পালঙ্কের পালা মঞ্চায়ন বর্ণাঢ্য আয়োজনে পালিত হচ্ছে আরএমপি’র ৩০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পুলিশ আপনার সেবায় সদা প্রস্তুত- করিমগঞ্জ থানার তদন্ত ওসি জয়নাল আবেদীন। রাজশাহী মেডিকেল কলেজের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত বাগমারার ঝিকরা ইউপি’তে চক্ষু শিবির অনুষ্ঠিত আর্তমানবতার সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন বড়চর সমাজ কল্যাণ সংগঠনের তরুনরা। নওগাঁর মান্দায় লটারীর মাধ্যমে মহিলাদের জন্য আয়বর্ধক প্রশিক্ষণ প্রকল্পের প্রশিক্ষণার্থী নির্বাচিত

আরএমপির”সিসি ক্যামেরায় অপরাধ নেমেছে অর্ধেকে

মো.পাভেল নিজস্ব প্রতিবেদক / ৫৩ Time View
Update : বুধবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০২১

রাজশাহী মেট্রোপলিটনপুলিশের (আরএমপি) অপারেশন কন্ট্রোল এন্ড মনিটরিং সেন্টার (সেন্ট্রাল সিসি ক্যামেরা ইউনিট) স্থাপনের এক বছর পূর্ণ হয়েছে। গত বছরের ২৭ ডিসেম্বর পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের এই ইউনিট উদ্বোধন করেছিলেন। রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মো. আবু কালাম সিদ্দিকের সার্বিক দিকনির্দেশনা ও ইনোভেটিভ চিন্তা প্রসূত এই ইউনিট প্রতিষ্ঠা করা হয়। আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির সর্বাধুনিক এই ইউনিটটি প্রতিষ্ঠার এক বছরেই রাজশাহী মেট্রোপলিটন এলাকায় সংঘটিত সকল ক্লু-লেস অপরাধ ও অপরাধী শনাক্তকরণে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে।

আরএমপি সূত্র জানায়, সর্বমোট ৫০০ সিসি ক্যামেরা প্রতিষ্ঠা করে পুরো মেট্রোপলিটন এলাকার সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার প্ল্যান করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রায় ৩৫০ টির অধিক ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে এবং বাকি ক্যামেরা স্থাপনের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। মেট্রোপলিটন এলাকায় রাস্তার সম্প্রসারণের কাজ চলমান থাকায় সকল ক্যামেরা স্থাপনের কাজ করতে কিছুটা বিলম্ব হলেও অধিকাংশ গুরুত্বপূর্ণ স্থান গুলোতে ক্যামেরা স্থাপনের কাজ শেষ হয়েছে। আধুনিক প্রযুক্তির লেটেস্ট ভার্সনের আইপি ক্যামেরা ও কমিউনিকেশন টেকনোলজির সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে। প্রত্যেকটি ক্যামেরা হাই রেজুলেশন ভিডিও ধারন করতে পারে এবং উচ্চগতি সম্পন্ন ডাটা ট্রান্সফারের জন্য ১২ কোরের অপটিক্যাল ফাইবার ব্যবহার করা হয়েছে। এক কথায় রাজশাহী মহানগর বাসীর নিরাপত্তা, অপরাধ ও অপরাধী শনাক্তকরনে সর্বাধুনিক তথ্য-প্রযুক্তি ও কমিউনিকেশন টেকনোলজি বা সিস্টেমের ব্যবহার করা হচ্ছে।

অপারেশন কন্ট্রোল এন্ড মনিটরিং সেন্টার এর সর্বমোট জনবল হচ্ছে ৯ জন। একজন সহকারী পুলিশ কমিশনারের নেতৃত্বে অপারেশন ও টেকনিক্যাল কার্যক্রমের জন্যে ১ জন ইন্সপেক্টর ১ জন সাব-ইন্সপেক্টর ও ৬ জন কনস্টেবল এবং বেতার কমিউনিকেশনের জন্যে ৩ জন কনস্টেবল সার্বক্ষণিক ও পালাক্রমে দায়িত্বরত রয়েছে।

আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির সর্বাধুনিক এই ইউনিটটি প্রতিষ্ঠার পর রাজশাহী মেট্রোপলিটন এলাকায় সংঘটিত সকল ক্লু-লেস অপরাধ ও অপরাধী শনাক্তকরণে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে। এই ইউনিটটি প্রতিষ্ঠার এক বছর পূর্তিতে একটি পরিসংখ্যান ভিত্তিক সাফল্যের তথ্য দেয়া হলো:

প্রায় ১০০ এর অধিক চুরির ঘটনার রহস্য উদঘাটন ও চোর শনাক্ত করণ হয়েছে। চুরির ঘটনার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে স্বর্ণচুরি, বিভিন্ন দোকান চুরি, ঔষধ চুরি, মোবাইল চুরি, অটো রিক্সা চুরি, মটরসাইকেল চুরি, গরু চুরিসহ অন্যান্য চুরির রহস্য উদঘাটন।

প্রায় ২৫ টির অধিক ছিনতাই ঘটনার রহস্য উদঘাটন সহ অপরাধী সনাক্ত করন। প্রায় ২০ টির অধিক ইভটিজিংয়ের ঘটনায় অপরাধী সনাক্ত করনসহ মহানগরীর কিশোর অপরাধ দমনে সার্বক্ষণিক মনিটরিং। প্রায় ১৫ টির অধিক হারানো ঘটনার রহস্য উদঘাটন।

গত এক বছরে রাজশাহী মহানগর এলাকার ২০ টির অধিক মারামারির ঘটনার রহস্য উদঘাটন সহ আসামী সনাক্তকরণ। ছেলে/মেয়ে হারানো বা হারিয়ে যাওয়া নাটক করা সহ বিভিন্ন ব্যক্তি হারানোর প্রায় ১৫ টির অধিক ঘটনার রহস্য উদঘাটন। প্রায় ১০ টির মত অজ্ঞান পার্টির ঘটনার আসামি শনাক্ত করণ। ৫০টির অধিক সড়ক দুর্ঘটনার প্রকৃত কারণ সনাক্ত সহ দ্রুত সংবাদ প্রেরণ।

১০ টির অধিক ক্লু-লেস মার্ডার মামলার রহস্য উদঘাটন সহ আসামি শনাক্তকরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন। এখন পর্যন্ত এই ইউনিটটি সর্বমোট ২৭০ টির ও অধিক ঘটনার রহস্য উদঘাটন ও আসামি শনাক্তকরনে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে কাজ করেছে।

এছাড়াও ট্রাফিক কন্ট্রোল, বিভিন্ন রাজনৈতিক প্রোগ্রামের মিছিল/র‍্যালী/ সমাবেশ, বিশেষ দিবসের পর্যবেক্ষণের জন্যে সার্বক্ষণিক মনিটরিং করা হয়। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়সহ রাজশাহী মহানগরের সকল গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা, মোড় ও স্থাপনার নিরাপত্তায় সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। এই ইউনিটটির সার্বক্ষণিক মনিটরিং এর কারনে বিগত বছরের তুলনায় মহানগরীতে প্রায় ৪০/৫০ শতাংশ অপরাধ কমেছে।

Print Friendly, PDF & Email


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category