• বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ০৭:১৬ পূর্বাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
নান্দাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ আহত ২ নান্দাইলে অভ্যন্তরীণ বোরো ধান সংগ্রহের উদ্ভোধন “ওয়াহেদপুর ইসলামিয়া আলিম মাদরাসা” উপজেলার শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান নির্বাচিত তিতাসে নিরাপদ চিকিৎসা চাই’র কমিটি গঠনের লক্ষে প্রস্তুতি সভা আন্তঃ প্রাথমিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা তিতাসের শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক মাহফুজুর রহমান চৌধুরী শুভ জন্মদিন হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার মাননীয় সংসদ সদস্য,কুমিল্লা- ৬ মোরেলগঞ্জে ভূমি সেবা সপ্তাহ র‌্যালি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত চিকিৎসার নামে প্রতারণা, ১ লক্ষ টাকা অর্থদন্ডের পরের দিন ভূয়া চিকিৎসক মনিরের এক বছর কারাদন্ড মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান হলেন ডাঃ মোসারফ হোসেন

নগরীতে মঞ্জিল ছাত্রাবাসের মালিক শিক্ষার্থীদের মারধর, শহরছাড়া করার হুমকি

Reporter Name / ৫৮ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

 মোঃ পাভেল ইসলাম প্রধান প্রতিবেদক

 রাজশাহী নগরীর হেতম খাঁ গোরস্থান এলাকার আহসান মঞ্জিল ছাত্রাবাসের মালিক ও তার ছেলের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় এডমিশন পরীক্ষার্থী ও ইন্টারমিডিয়েট পড়ুয়া ছাত্রদের মারধর ও ‘লাথথি মেরে’ শহর থেকে বের করে দেয়ার হুমকির অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ভুক্তভোগী ছাত্ররা সাংবাদিকদের কাছে এমন অভিযোগ করেছেন। অভিযুক্ত ওই মেস মালিকের নাম মো. কালু। তার ছেলের নাম রিয়াদ হোসেন। তিনি বোয়ালিয়া থানা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজের ছাত্র। আহসান মঞ্জিল ছাত্রাবাসের শিক্ষার্থীরা জানান, সম্প্রতি নগরীর হেতম খাঁ এলাকার ছাত্রাবাসে তারাে উঠেন। তবে সেখানে অনেক সমস্যায় পড়তে হয় তাদের। মেস মালিক মো. কালু ও তার ছেলে রিয়াদ হোসেন মাঝেমধ্যেই তাদেরকে গালিগালাজ ও হুমকি ধামকি দিতেন। সময়মতো মেস ভাড়া ও বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা হলেও পুনরায় ভাড়া নেয়ার জন্য জোর জবরদস্তি করতেন মেস মালিক। ছাত্রদের অভিযোগ, সর্বশেষ মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) ভোরে মেস মালিক মো. কালু ছাত্রাবাসে এসেই কয়েকজন শিক্ষার্থীর গলা চেপে ধরে মারতে শুরু করেন এবং তাদের মানিব্যাগে থাকা টাকাপয়সা ছিনিয়ে নেন। একপর্যায়ে গালিগালাজ করে রাজশাহী শহরছাড়া করা ও কলেজে ক্লাস করতে না দেয়ার হুমকি দিয়ে চলে যান তিনি। এরপর তারা আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে মালোপাড়া পুলিশ ফাঁড়িতে অভিযোগ দেন। এ বিষয়ে অভিযুক্ত মেস মালিক মো. কালু তার বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, মেসের ছাত্ররাই আমার সাথে দুর্ব্যবহার করেছে। তবে তার ছেলে সাবেক ছাত্রদল নেতা মো. রিয়াদ বলেন, এটা আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এ ব্যাপারে মালোপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইফতেখার আলম জানান, অভিযোগ পেয়ে ছাত্রাবাসে পুলিশ পাঠানো হয়। পুলিশ গিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করে দিয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category