• শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০৫:৩৬ পূর্বাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
বর্ণাঢ্য আয়োজনে পালিত হচ্ছে আরএমপি’র ৩০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পুলিশ আপনার সেবায় সদা প্রস্তুত- করিমগঞ্জ থানার তদন্ত ওসি জয়নাল আবেদীন। রাজশাহী মেডিকেল কলেজের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত বাগমারার ঝিকরা ইউপি’তে চক্ষু শিবির অনুষ্ঠিত আর্তমানবতার সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন বড়চর সমাজ কল্যাণ সংগঠনের তরুনরা। নওগাঁর মান্দায় লটারীর মাধ্যমে মহিলাদের জন্য আয়বর্ধক প্রশিক্ষণ প্রকল্পের প্রশিক্ষণার্থী নির্বাচিত পুঠিয়ার নান্দিপাড়া স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েও সুফল পায়নি এলাকাবাসী জলঢাকা পৌরসভার বাজেট ঘোষণা। জলঢাকায় মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার রোধে কর্মশালা অনুষ্ঠিত। স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ এর মৃত্যুতে রাসিক মেয়র লিটনের শোক প্রকাশ

মিনুকে গ্রেপ্তারের দাবিতে ওয়ার্কার্স পার্টির বিক্ষোভ

Reporter Name / ৫৩ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ৪ মার্চ, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক

বঙ্গবন্ধুকে অবমাননা ও দেশের প্রধানমন্ত্রীকে প্রাণনাশের ইঙ্গিত দিয়ে মিজানুর রহমান মিনু যে অপরাধ করেছেন তা ক্ষমার অযোগ্য উল্লেখ করে তাকে দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি রাজশাহী মহানগর।

বৃহস্পতিবার বিকেলে শহরের সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে আয়োজিত এক বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে এমন দাবি জানান দলটির নেতারা। বঙ্গবন্ধুকে অবমাননা ও প্রধানমন্ত্রীকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়ায় মিনুকে গ্রেফতারের দাবিতে ওয়ার্কার্স পার্টির মহানগর কমিটি এই বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে। সমাবেশের আগে একটি বিক্ষোভ মিছিলও বের করা হয়। যা শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জিরোপয়েন্টের সমাবেশে মিলিত হয়।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশে জঙ্গিবাদের গডফাদার মিজানুর রহমান মিনুর দেয়া বক্তব্যে ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছি। তার দেয়া বক্তব্য প্রমাণ করে ৭৫ এর ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যার পেছনে বিএনপি জড়িত ছিল। মিনু মঞ্চে উঠে লম্বা-লম্বা ভাষণ দেন! অথচ তিনিই একসময় ভোট চুরি করে একাধারে সিটি করপোরেশনের মেয়র ও সদর আসনের এমপি হয়েছিলেন। সে সময় তিনি রাজশাহীকে একটি ধ্বংস নগরীতে ঠেলে দিয়ে সিটি করপোরেশনকে বানিয়েছিলেন মাদক ও দুর্নীতির আখড়া।

মিনু রাজশাহীতে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসের জন্ম দিয়েছেন মন্তব্য করে ওয়ার্কার্স পার্টির নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, ২০০৩ সালে বাগমারাকে কেন্দ্র করে যখন বাংলা ভাইয়ের উত্থান হয়; তখন এই মিনুই জঙ্গিবাদকে প্রতিষ্ঠিত করতে তাকে আর্থিক সহায়তা দিয়েছিলেন। আদালতে আজও বাংলা ভাইয়ের দেয়া সেই জবানবন্দী সংরক্ষিত আছে। যে নেতা এলাকার মানুষের ট্যাক্সের টাকা কুখ্যাত জঙ্গির হাতে তুলে দেয় সেই নেতার মুখে এতো বড়-বড় কথা শোভা পায় না।

যে ব্যক্তি রাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রীকে প্রাণনাশের ইঙ্গিতপূর্ণ হুমকি দেয় তাকে কোনভাবেই ছাড় না দেয়ার দাবি জানিয়ে তারা বলেন, গতকাল রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মাননীয় মেয়র এএইএম খায়রুজ্জামান লিটন মিনুকে ক্ষমা চাওয়ার জন্য ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছেন। আমরা মনে করি, মিনু যে অপরাধ করেছেন তা কোনভাবেই ক্ষমা করা যায়না। এর আগেও তিনি একাধিকবার প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রের প্রতি ধৃষ্টতাপূর্ণ বক্তব্য দিয়ে ক্ষমার মধ্য দিয়ে পার পেয়েছেন। সুতরাং এবার যেন তাকে ক্ষমা করে আর সেই সুযোগ না দেয়া হয়। তিনি যে অপরাধ করেছেন তার জন্য তাকে আইনের আওতায় আনতেই হবে।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির রাজশাহী মহানগরের সম্পাদকমণ্ডলির সদস্য অ্যাড. এন্তাজুল হক বাবুর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য দেন- মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু, সম্পাদকমণ্ডলির সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ, আব্দুল মতিন, নাজমুল করিম অপু প্রমুখ। সমাবেশ সঞ্চালনা করেন মহানগর কমিটির সদস্য ও ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মতিউর রহমান মতি।

Print Friendly, PDF & Email


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category