• সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০২:৩২ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম

করিমগঞ্জে চাঞ্চল্যকর শামীম হত্যা মামলার আসামিকে গ্রেফতার করেছে করিমগঞ্জ থানা পুলিশ।

Reporter Name / ১০৬ Time View
Update : রবিবার, ৪ এপ্রিল, ২০২১

মোঃ জনি হোসেন, করিমগঞ্জ (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ
করিমগঞ্জ উপজেলায় শামীম হত্যা মামলার আসামি আলী নেওয়াজের পুত্র এজাহার নামীয় জিলু (৫৮)কে গ্রেফতার করেছে করিমগঞ্জ থানা পুলিশ।

শনিবার (৩ এপ্রিল) দিবাগত রাতে সুনামগঞ্জ জেলার তাহেরপুর থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে থাকে গ্রেফতার করা হয়।রবিবার (৪ এপ্রিল) সকাল ৯:৩০ টায় আসামি এজাহার নামীয় জিলু (৫৮) কে করিমগঞ্জ থানায় এনে হাজির করা হয়।এবং আসামিকে এজাহার নামীয় জিলু (৫৮) কে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন সহ কিশোরগঞ্জ বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হয়।সকালে করিমগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মমিনুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

করিমগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মমিনুল ইসলাম জানান গোপন সংবাদের ভিত্তিতে করিমগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মমিনুল ইসলাম নেতৃত্বে করিমগঞ্জ থানার এস আই আমিনুল মোমেনীন করিমগঞ্জ থানার এস আই ফখরুল হাসান ফারুক,সঙ্গীয় ফোর্স সহ শনিবার দিবাগত রাতে সুনামগঞ্জ জেলার তাহের পুর থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে শামীম হত্যা মামলার আসামী করিমগঞ্জ উপজেলার গুজাদিয়া আশুতিয়াপাড়া আলী নেওয়াজের পুত্র এজাহার নামীয় জিলু (৫৮)কে গ্রেফতার করে করিমগঞ্জ থানা পুলিশের চৌকস টিম।

পুলিশ সুত্রে জানায়, পুর্ব হইতে জায়গা জমি নিয়ে বিরোধ‌ ও ঝগড়া হয়ে আসছিল ঘটনার অনুমান ১মাস পুর্বে মৌসুমী তার মায়ের বাড়িতে আসে ঘটনার দিন ১৪-৩-২১ তারিখ সকাল টার সময় আসামিগন গুজাদিয়া আশুতিয়াপাড়া সাকিন্থ বসত বাড়িতে অনধিকার প্রবেশ করিয়া জায়গা জমির বিরোধকে কেন্দ্র করে তাদেরকে জঘন্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে মেয়ে মৌসুমী গালিগালাজ করিতে নিষেধ করিলে মৌসুমীর সাথে আসামিদের কথা কাটাকাটি হয়।

কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আসামি নাজমুল মৌসুমীকে এলোপাথাড়ি ভাবে কিল ঘুষি মারে এবং মৌসুমীর কানে থাকা আট আনা ওজনের স্বর্নের একটি দুল মুল্য ৩০.০০০ টাকা টান দিয়ে ছিড়ে নিয়ে যায় যাহাতে কানের লতি ছিড়িয়া দুই ভাগ হয়ে মারাত্মক কাটা রক্তাত হয়।মৌসুমী চিৎকারে মা ও ছেলে শামীম দৌড়ায়া এসে বাধা দিলে আসামি জিকু, আব্দুল আলী, হাতিম ও জয়নাল শামীমের দুই হাত বেঁধে রেখে এবং আসামি মারজুল, ওমর সিদ্দিক ,জাহানারা, লিটন ,সুরুজ আলী, আল আমিন, সহ তাদের হাতে থাকা লাঠি সেটা দিয়ে খুন করার একই উদ্দেশ্যে শামীমকে এলোপাথাড়ি ভাবে মারপিট করিয়া ডান হাতের আঙুলে উপরে ছিলা ফুলা যখম হয় শামীম মাটিতে পড়ে গেলে আসামি নজরুল জয়নাল ও আওয়াল এলোপাথাড়ি ভাবে বুকে পিটে লাতি মারে এবং গুরুতর আহত হয় এখন বাঁধা দিলে আসামি জিলু আব্দুল আলী হাতিম জয়নাল তাহাদের হাতে থাকা লাঠি দিয়ে এলোপাথাড়ি ভাবে লাঠি দিয়ে মারপিট সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে যখম হয়

চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে রক্ষা করে ‌পরে কতক সাক্ষী শামীম মৌসুমী এবং মাকে করিমগঞ্জ হাসপাতালে নিয়ে আসলে ডাক্তার শামীম মৌসুমীকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে শামীমের অবস্থা গুরুতর দেখে ডাক্তারের র্ফোড মুলে শামীমকে কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতাল সেখান হতে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ নিয়ে চিকিৎসা জন্য ভর্তি করে চিকিৎসা ধীন অবস্থায় শামীমের অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে ডাক্তার ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে সেখান থেকে ঢাকা কিডনি হাসপাতালে রেফার্ড করেন, এবং ঢাকা যাওয়ার পথে ২১-২-২১ তারিখ রাত ২:৩০ ঘটিকার সময় ময়মনসিংহ ত্রিশাল এলাকায় রাস্তায় মৃত্যু বরণ করেন।

 

Print Friendly, PDF & Email


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

একটি পরিকল্পিত আদর্শ ওয়ার্ড গড়ে তোলার লক্ষ্যে সকলের দোয়া প্রার্থী।