• মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০১:৪৯ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
গভীর রাতে রাস্তায় সন্তান প্রসব ; কোলে তুলে নিলেন করিমগঞ্জ থানার তদন্ত-ওসি আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী কক্সবাজার ও বান্দরবানের ৩ মাদক কারবারী ইয়াবাসহ চট্টগ্রামে আটক যশোর যুবলীগের আয়োজনে আইসিইউ সরঞ্জাম প্রদান করেন সাবেক মেয়র রেন্টু ঠাকুরগাঁওয়ে ৫৭১ পিস ইয়াবা ও ১৪,৮৮৬ টাকা সহ মাদক ব্যাবসায়ী গ্রেফতার বাগমারায় ইউবিসিসিএ এর নির্বাচনে সভাপতি নির্বাচিত রাজ্জাক মোল্লা বাঘা থানা পুলিশের অভিযানে মাদকসহ আটক ৪ ঠাকুরগাঁওয়ে পুকুরে ডুবে শিশুর মৃত্যু কুষ্টিয়ায় চেয়ারম্যান প্রার্থী বক্করের বিরুদ্ধে বোমা ফাটালেন এক আ’লীগ নেত্রী ময়মনসিংহের নান্দাইলে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের তৃণমূল সভা অনুষ্টিত রাণীশংকৈলে ১নং ধর্মগড় ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ আকবর আলী মাষ্টার জনপ্রিয়তার শীর্ষে।

তাপ প্রবাহে বোরো ধানের ব্যাপক ক্ষতি কেন্দুয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত মাঠ পরিদর্শনে বললেন ব্রির বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তারা

Reporter Name / ৫২ Time View
Update : মঙ্গলবার, ৬ এপ্রিল, ২০২১

ফয়সাল চৌধুরী (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি

নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলায় আকস্মিক ঝড়ো বাতাস ও তাপ প্রবাহের কারণে বোরো ধানের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি দেখার জন্য বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেছেন বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিআরআরআই-ব্রি) একদল বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা। ওই দলের সদস্যরা মঙ্গলবার (০৬ এপ্রিল) উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ক্ষতিগ্রস্ত ফসলি মাঠে এ পরিদর্শন কার্যক্রম চালান।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, চলতি মওসুমে কেন্দুয়া
উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে ২০ হাজার ৭৫০ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ হয়েছে। ইতিমধ্যে বিভিন্ন জাতের ধানের শীষ ‘ফুল ও দুধ’ অবস্থায় ছিল। এ অবস্থায় গত রবিবার রাতে আকস্মিক ঝড়ো বাতাস ও তাপ প্রবাহ বয়ে যায়। এতে উপজেলার বিভিন্ন হাওড়সহ ইউনিয়ন পর্যায়ে বিস্তীর্ণ ফসলের মাঠের ব্যাপক ক্ষতি হয়। এতে কৃষকেরা দিশেহারা হয়ে পড়েন।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার (০৬ এপ্রিল) বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিআরআরআই-ব্রি) একদল বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন এলাকার বোরো ফসলের মাঠ পরিদর্শন করেন।গাজীপুরস্থ ওই গবেষণা ইউনস্টিটিউটের কীটতত্ত্ব বিভাগের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. নাজমুল বারী, উদ্ভিদ শরীরতত্ত্ব বিভাগের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. সাজ্জাদুর রহমান ও রোগতত্ত্ব বিভাগের ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আশিক ইকবাল খানসহ পরিদর্শক দলটি কেন্দুয়া উপজেলার ব্রাহ্মণজাত, টেঙ্গুরী ও গোগ হাওরসহ বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শনে যান।

এ সময় পরিদর্শন দলের সদ্যরা আশাতীত ফলনের অপেক্ষায় থাকা বিস্তীর্ণ মাঠের ফসলের করুণ দশা প্রত্যক্ষ করেন। সেই সঙ্গে আকস্মিক তাপ প্রবাহে ‘ফুল ও দুধ’ অবস্থায় থাকা এসব ধান ‘হিট শক’ এর কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হন।

তাছাড়া যেসব ধানের এখনো শীষ বের হয়নি অর্থাৎ ‘বুটিং ও হেডিং’ স্টেজে রয়েছে সেগুলোও ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করেছেন। এ অবস্থায় ওইসব ধান ক্ষেতে এখন পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি ধরে রাখা এবং ‘ম্যাজিক স্প্রে’ (১০ লিটার পানিতে ৬০ গ্রাম এমওপি সার, ৬০ গ্রাম থিওভিট ও ২০ গ্রাম চিলেটেড জিংক) প্রয়োগের পরাদর্শ দেন। এতে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কায় থাকা ধানগাছগুলো কিছুটা শক কাটিয়ে উঠার সম্ভাবনা রয়েছে।

এ সময় বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তাদের দলকে পরিদর্শন ও মাঠ পর্যবেক্ষণে সহায়তা করেন কেন্দুয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এ কে এম শাহজাহান কবির, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা তারিক আজিজ ও উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা আতিকুর রহমান প্রমুখ। পরে বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তাদের দলটি একইভাবে ক্ষতিগ্রস্ত বোরো ফসলের মাঠ দেখার জন্য উপজেলা মদন ও খালিয়াজুড়িতে যান।

এদিকে আগের দিন সোমবার (০৫ এপ্রিল) উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মইনউদ্দিন নেত্রকোণা ,জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহকারী উপ-পপিরচালক তানভীর হাসান ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা একেএম শাহজাহান কবির ও কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা তারিক আজিজসহ মাঠ পর্যায়ে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারাও তাপ প্রবাহে ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন এলাকার বোরো ফসলের মাঠ পরিদর্শন করেছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

একটি পরিকল্পিত আদর্শ ওয়ার্ড গড়ে তোলার লক্ষ্যে সকলের দোয়া প্রার্থী।