• মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৫:১৫ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
রাজশাহীতে পুলিশের চাকরি দেবার নামে টাকা হাতিয়ে নেওয়া প্রতারক গ্রেফতার কক্সবাজার ডিএনসি মাদক নিয়ে ফেরিওয়ালা মহিলা আটক করেছেন রাজশাহীতে ট্রেনে কাটা পড়ে গ্রামীণ ব্যাংক কর্মচারি নিহত রাজশাহী মহানগরীতে জুয়েলার্স থেকে চুরি যাওয়া স্বর্ণালংকার উদ্ধার;দুই চোর গ্রেফতার আটপাড়ায় এইচ এস সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত কুষ্টিয়া ইউপি চেয়ারম্যানের ফেনসিডিল সেবনের ভিডিও ফাঁস! রাবিতে শেষ হলো ছায়া জাতিসংঘ সম্মেলন রাজশাহীর মোহনপুরে ভাতিজার হাতে চাচা খুন রাজশাহীর আলোচিত পিরু হত্যা মামলার মূল আসামী আটক তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে

ডোমারে চাঞ্চল্যকর মাদক সম্রাট মিজানুর হত্যা রহস্য উদঘাটন, গ্রেপ্তার ২

নুর মোহাম্মদ সুমন, নীলফামারী প্রতিনিধি / ৯৭ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২১

নীলফামারীর ডোমারে মাদক সম্রাট মিজানুর হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে ডোমার থানা পুলিশ। মাত্র চার দিনের মধ্যে মাদকব্যবসায়ী মিজানুর হত্যার রহস্য উদঘাটন করে পুলিশ এক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে। মুলত মাদক বেচাকেনা ও খাওয়াকে কেন্দ্র করে এই হত্যার ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে।

গত ২১ এপ্রিল (বুধবার) মাদকসেবী আব্দুস ছালাম(৩৫) ওরফে পিন কোড বাবু ও আবু তালেব(৫৫) দুজন মিলে এ হত্যা কান্ডটি সংঘটিত করে। এ ঘটনায় হত্যাকারি ২ জনকেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ঘটনার দিন বুধবার রাতেই ডোমার ছোটরাউতা গ্রামের হাকিম উদ্দিনের ছেলে আবু তালেবকে জিজ্ঞাসার জন্য আটকের পর আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এই হত্যার ব্যাপারে নানান কথা চারিদিকে ছড়িয়ে পরে। কিন্তু হত্যার বিষয়টি গুরুত্বসহকারে নিয়ে ডোমার থানা পুলিশ ব্যাপক তৎপরতা চালায়। নিহত মিজানুরের মোবাইলের কললিষ্ট থেকে একাধিকবার জনৈক পিনকোট বাবু মিজানুরের মোবাইলে ফোন দেয় ।

বিষয়টি পুলিশের সন্দেহ হলে তাকে থানায় নিয়ে এসে জিজ্ঞাসাবাদ করে। জিজ্ঞাসাবাদে এক পর্যায়ে হত্যার কথাটি স্বীকার করে সে। পিন কোট বাবু ছোট রাউতা কাজী পাড়া গ্রামের রশিদুল ইসলাম ছানুর ছেলে।

জেলা পুলিশ সুপার মোখলেছুর রহমান বিপিএম পিপিএম এর নির্দেশ মোতাবেক, সহকারী সিনিয়র পুলিশ সুপার(ডোমার সার্কেল) জয়ব্রত পালের দিক নির্দেশনায়, অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজার রহমান, ওসি(তদন্ত)বিশ্বদেব রায়ের নেতৃত্বে পুলিশের চৌকস একটি টিম ৪ দিন নিরলস ভাবে তদন্ত করে এই হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন করেন।

২৫ এপ্রিল রবিবার বিকেলে আব্দুস ছালাম ওরফে পিনকোড বাবুকে পুলিশ তার নিজ বাড়ী হতে গ্রেফতার করে। সোমবার আদালতে সোপর্দ করা হলে স্বেচ্ছায় বিজ্ঞ আদালতে ফৌজদারী কার্যবিধি আইনের ১৬৪ ধারায় মিজানুরকে হত্যার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি প্রদান করেন।

ডোমার থানা অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজার রহমান জানান, হত্যার দিন মিজানুরের সাথে তার বাড়ীতে মাদক খাওয়া নিয়ে কথা কাটাকাটি হয় আবু তালেব ও পিন কোট বাবু’র।

তারই জের ধরে চেয়ারে বসে থাকা মিজানুরের গলায় ফ্যানের তার পেচিয়ে ধরে তালেব ও পিন কোট বাবু পা চিপে ধরে থাকে। মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর তারা সেখান থেকে পালিয়ে যায়।মিজানুরের মৃত্যুদেহের পাশেই তালেবের ব্যবহৃত চশমাটি পরে থাকতে দেখে পরিবারের লোকজন সন্দেহ করে ঘটনাটি কারো সহযোগীতায় তালেবেই করেছে।

মামলা সুত্রে জানাযায়,১৯ এপ্রিল রাত আড়াইটার দিকে মিজানুরের সাথে পাশ্ববর্তী এলাকার মাদক সেবী আবু তালেবের ঝগড়া হয়। ২১এপ্রিল মিজানুরকে বাড়ীতে রেখে আনুমানিক দুপুর দেড়টার দিকে মৃত মিজানুরের স্ত্রী মাদক সম্রাজ্ঞী রুপা, মেয়ে মেঘলা ও ভাতিজিকে নিয়ে ডাক্তার দেখানোর জন্য তারা রংপুরে যায়। ডাক্তার দেখানো শেষে সন্ধ্যার দিকে বাড়ী ফিরে দেখে মেইন গেট ভিতর থেকে আটকানো।

পিছনের গেটটি খোলা থাকায় বাড়ীতে ঢুকে দেখে রুমে চেয়ারে বসা মিজানুরের মৃতদেহ। তারা বাড়ীতে না থাকায় উক্ত ঘটনার জের ধরে আসামী আবু তালেব অজ্ঞাতনামা আসামীগন দুপুর দেড়টার পর হতে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার আগে যে কোন মুহর্তে কে বা কারা গলায় ফাঁস দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে চেয়ারে বসিয়ে রেখে পালিয়ে যায়।

গত ২২এপ্রিল (বৃহষ্পতিবার) মৃত মিজানুরের মেয়ে মেঘলা মনি বাদী হয়ে আবু তালেবের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো কয়েক জনকে আসামী করে ডোমার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এরই জের ধরে পুলিশ রাতেই তালেবকে গ্রেফতার করেন। পরের দিন তাকে আদালতে তোলা হয় ।

Print Friendly, PDF & Email


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

একটি পরিকল্পিত আদর্শ ওয়ার্ড গড়ে তোলার লক্ষ্যে সকলের দোয়া প্রার্থী।