• বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ০৫:৩৭ পূর্বাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
রাণীশংকৈল থানার এসআই হাফিজের বিশেষ অভিযানে ৭৬ পিছ ইয়াবাসহ ২জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার ঠাকুরগাঁওয়ে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ পালংখালী গয়ালমারা ইয়াং স্টার সোসাইটির ৪র্থতম নির্বাচনে সভাপতি বেলাল উদ্দিন ও সাধারন সম্পাদক সেলিম উদ্দীন নির্বাচিত হয়েছেন। নান্দাইলে অটো রিক্সা চালক কে হত্যা করে ছিনতাইয়ের ঘটনায় ৪ জন আটক রাজশাহীতে ছিনতাইয়ের অভিযোগে যুবক গ্রেপ্তার শাবির ঘটনায় রাবি শিক্ষকদের অবস্থান কর্মসূচি রাজশাহীতে অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবী,আটক ১ রাজশাহীতে ১২ বছরের কিশোরী ধর্ষণ-৩ জনের নামে থানায় মামলা শীতার্তের ঘরে গিয়ে শীতবস্ত্র দিয়ে আসছে “হেল্প চাঁপাই” নেত্রকোণার পূর্বধলায় মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

কুমিল্লা সদর দক্ষিণে রাতের আধাঁরে প্রবাসীর জমির ধান কেটে নেয়ার অভিযোগ জেলা পরিষদের সদস্যর বিরুদ্ধে

Reporter Name / ৫৪ Time View
Update : বুধবার, ২৮ এপ্রিল, ২০২১

কুমিল্লা প্রতিনিধি :
কুমিল্লার সদর দক্ষিণের বিজয়পুরের তুলাতুলি গ্রামে রাতের আধারে এক প্রবাসীর জমির ধান কেটে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে জেলা পরিষদের সদস্যর বিরুদ্ধে। এছাড়া প্রবাসীর পরিবারের সদস্যদের হুমকি দামকি দেওয়ার অভিযোগও রয়েছে। এ ব্যাপারে সদর দক্ষিণ মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে ভুক্তভোগি পরিবার।

থানায় দায়ের করা ডায়েরী ও ভুক্তভোগি পরিবারের সদস্য জাপান প্রবাসী ফরিদুল আলম ও রেজাউল ইসলামের মা আমেনা বেগম জানান, কুমিল্লা সদর দক্ষিণের বিজয়পুর ইউনিয়নের অন্তরভুক্ত তুলাতুলি গ্রামের জাপান প্রবাসী ফরিদুল আলমের অর্ধ পরিপক্ক ধান পবিত্র রমজান মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে গভীর রাতে জেলা পরিষদের সদস্য সালমা আক্তার বিউটি ও তার স্বামী মো: ইসমাইল খোকন, ছেলে নাবিলসহ ৪/৫ জন মিলে রাতের বেলায় কেটে নিয়ে যায় এবং ভোর হওয়ার সাথে সাথে ধান মাড়িয়ে ঘরের ছাদে শুকাতে দেয় এবং ধানের খরকুটা সরিয়ে ফেলা হয়। এতে প্রবাসীর মা আমেনা বেগম জানতে পেরে পুলিশকে খবর দেয়।

পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনা তদন্তে আসেন। এসময় পুলিশের কাছে প্রবাসীর কেয়ারটেকার মো: আলম স্বাক্ষ্য প্রদান করেন। প্রবাসী ফরিদুল দেশে থাকাবস্থায় সেও প্রবাসীর কেয়ারটেকার নিজেই ওই জমিতে ধান রোপন করেন এবং পরিচর্চা করেন।

এদিকে পুলিশের কাছে সালমা ইসলাম ধানের জমিটি নিজের দাবী করেন। নিজের জমি হলে যখন ধান রোপন করা হলো তখন কোন বাধা দেননি কেন, তাছাড়া নিজের জমি হলে রাতে কেন ধান কাটলেন,পুলিশের এমন প্রশ্নের জবাবে সালমা আক্তার বিউটি ও তার স্বামী ইসমাইল কোন উত্তর দিতে পারেননি।

আমেনা বেগম আরো জানান, সালমা আক্তার তার ছেলের বউ, তার বিভিন্ন অপকর্মের কারনে আমাদের পরিবার তার কাছ থেকে আলাদা থাকে। সে আমাকেও বিভিন্ন সময় মারধর করেছে। আমার অন্যান্য ছেলেরা বাহিরে থাকার সুবাদে আমি কুমিল্লায় একা থাকি। সে সকল সম্পত্তি আত্মসাৎ ও ভোগ দখল করার জন্য আামাকে প্রাণে মেরে ফেলতে চান। আমার প্রবাসের ছেলেদেরও বিভিন্ন হুমকি দামকি দেয়। সালমা আক্তার বিউটি ক্ষমতার দাপটে আমরা কেউই রক্ষা পাচ্ছিনা, জমি দখল, মারধর, ধানকাটা, পুকুরের মাছ চুরি, গাছকাটা থেকে শুরু করে গ্রামের প্রতিবাদকারী গ্রামবাসীর মুখ বন্ধ করে দিয়েছে। কেউ প্রতিবাদ করলে তাকে মারধর ও মিথ্যে মামলা সাজিয়ে জেলে পাঠানোর ভয়ভীতি পরিদর্শন করে। সালমা বিউটির ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে তার স্বামী ইসমাইল খোকন তার পৈতৃক সম্পত্তী’র বর্তমানে দামী জমিগুলো আপন ২ ভাইয়ের সাথে প্রতারনা করে তার নাবালক সন্তান এবং তার স্ত্রী জেলা পরিষদের সদস্য সালমা বিউটির নামে দিয়ে দেয়।সালমা আক্তার বিউটি তার বাবা আওয়ামীলীগ নেতা মোস্তফা হোসেন বাচ্চু’র ক্ষমতাকেও কাজে লাগাচ্ছে। বিউটি ও তার বাবা উপজেলা চেয়ারম্যান, অর্থমন্ত্রী, সাবেক রেলপথমন্ত্রীর নাম ব্যবহার করে এসকল অপকর্ম করে বেড়াচ্ছে। থানা পুলিশকেও তাদের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নিলে প্রভাব খাটাতে চেষ্টা করে।

আমেনা বেগম আরো জানান, আওয়ামীলীগ নেতা বাচ্ছু মিয়া তার মেয়ের শ্বশুর বাড়িতে এসে মেয়ের আমাকে ও আমার ছেলেদের অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে এবং মারতে পর্যন্ত আসে। আমরা ভয়ে নিশ্চুপ থাকি। সম্প্রতি ধান কাটার ঘটনায় আমাদের কেয়ারটেকার আলম পুলিশকে স্বাক্ষ্য দিলে তাকে ইসমাইল খোকন ও তার ছেলে ব্যাপক মারধর করে এবং প্রানে মেরে ফেলার হুমকি দেয়।

তাদের বিভিন্ন অপকর্মের প্রতিবাদে সম্প্রতি ভোক্তভোগি প্রবাসির পরিবার নগরীর কান্দিরপাড়ে একটি সংবাদ সম্মেলন করেছিল। এর পেক্ষিতে বিউটি বেগম পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে প্রবাসী পরিবারকে বিএনপি জামাত বলে উল্লেখ করেন।

প্রবাসী ফরিদুলের মা আমেনা বেগম জানান, প্রবাসী ফরিদুল আলম পারিবারিকভাবেই আওয়ামী পরিবারে সন্তান। তিনি র্দীঘ ৩২ বছর জাপানে বসবাস করছেন। জাপানে একজন সুনামধন্য সফল ব্যবসায়ী। ছোট ছেলে রেজাউল ইসলাম জাপানে বর্তমান সেচ্ছাসেবকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।

জাপান প্রবাসীর ফরিদুলের মাআমেনা বেগম নিজের নিরাপত্তার জন্য নিজ ছেলে এবং পুত্রবধু জেলা পরিসদের সদস্য সালমা আক্তার বিউটির বিরুদ্ধে ৫ মার্চ ২০২১ সালে জিডি করেন জিডিনং ২২০। পরর্বতীতে প্রবাসী মো: ফরিদুল আলম ১০ মার্চ ২১ তারিখে থানায় সাধারণ অভিযোগ করেন । পুলিশ এসে বিউটি এবং তার স্বামীকে সাবধান করে যান। তাদের এ সকল অপর্কমমূলক কার্যকলাপ হইতে পরিত্রান পাওয়ার জন্য প্রশাসন এবং জেলা উপজেলার উধর্তন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপের মাধ্যমে উক্ত প্রবাসীর পরিবারের জানমালের রক্ষার জন্য অনুরোধ জানান ভুক্তভোগী পরিবারটি।

এম জি আর এ

Print Friendly, PDF & Email


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category