• সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ০৫:৫৭ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
নান্দাইল প্রেসক্লাব পদক ২০২২ পেলেন আজকের পত্রিকার সাংবাদিক মিন্টু মিয়া ডিমলা বাসীকে ”ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা” জানিয়েছেন ওসি লাইছুর রহমান তিতাসে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র মৎস্যজীবী জেলে সমিতির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল কুমিল্লা কলেজ থিয়েটারের একযুগ পূর্তিতে চাঁদ পালঙ্কের পালা মঞ্চায়ন বর্ণাঢ্য আয়োজনে পালিত হচ্ছে আরএমপি’র ৩০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পুলিশ আপনার সেবায় সদা প্রস্তুত- করিমগঞ্জ থানার তদন্ত ওসি জয়নাল আবেদীন। রাজশাহী মেডিকেল কলেজের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত বাগমারার ঝিকরা ইউপি’তে চক্ষু শিবির অনুষ্ঠিত আর্তমানবতার সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন বড়চর সমাজ কল্যাণ সংগঠনের তরুনরা। নওগাঁর মান্দায় লটারীর মাধ্যমে মহিলাদের জন্য আয়বর্ধক প্রশিক্ষণ প্রকল্পের প্রশিক্ষণার্থী নির্বাচিত

লকডাউনেও আওয়ামী লীগ নেতার ‘জলকুটির’ খোলা

ডেক্স নিউজ / ১২৪ Time View
Update : শনিবার, ২৪ জুলাই, ২০২১

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে দেশজুড়ে সরকারঘোষিত কঠোর লকডাউনের প্রথম দিনেই সরকারি সিদ্ধান্তকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে পর্যটকদের জন্য ‘জলকুটির’ খোলা রেখেছেন এক আওয়ামী লীগ নেতা। বিধিনিষেধ স্বত্ত্বেও জলকুটিরে পরিবার নিয়ে ঘুরতে আসছে শত শত মানুষ। শুধুমাত্র ব্যবসায়িক মুনাফার জন্য ‘জলকুটির’ খোলা রাখায় দর্শনার্থীদের সমাগম থেকে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।

শনিবার (২৪ জুলাই) বিকেলে উপজেলার শিমুলিয়া ইউনিয়নের রাঙ্গামাটি এলাকায় গিয়ে এ চিত্র দেখা যায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, কঠোর বিধিনিষেধের প্রথম দিনে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে শিমুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন খান তার গাঙচিল ফাস্টফুড অ্যান্ড রেস্টুরেন্ট নামক ‘জলকুটির’ খোলা রেখেছেন। নামে ফাস্টফুড ও রেস্টুরেন্ট হলেও মূলত এটি হচ্ছে ‘জলকুটির’।

‘জলকুটিরটিতে’ এক সঙ্গে বসে লোকজন সময় কাটান। এই জলকুটির খোলা রাখায় আশপাশের বিভিন্ন এলাকার লোকজন জড়ো হতে শুরু করে। এ সময় কেউ কেউ জলকুটিরে বসে ফাস্টফুড আইটেম অর্ডার দিয়ে বসে গল্প করছেন। গাদাগাদি করে মানুষজন ঢুকছেন আবার বের হচ্ছেন। অধিক লোক সমাগমের ফলে জল কুটিরে আগত দর্শনার্থীদের করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি দেখা দিয়েছে। এছাড়া বেশিরভাগ লোকজনের মুখে মাস্ক ছিল না।

স্থানীয় বাইদগাঁও এলাকা থেকে বাচ্চা নিয়ে বেড়াতে আসা অঞ্জনা বেগম জানান, ঈদের মধ্যে আমরাতো আর দূরে কোথাও যেতে পারি না। এই জলকুটির আমাদের বাড়ি থেকে কাছে হওয়ায় এখানে এসেছি। করোনার ঝুঁকি থাকার পরও বাচ্চাদের নিয়ে ঘুরতে এসেছি।

জিরানী এলাকা থেকে মেয়েকে নিয়ে ঘুরতে যাওয়া ফরহাদ হোসেন বলেন, মেয়েকে নিয়ে এখানে ঘুরতে এসেছিলাম। কিন্তু এসে দেখি এখানে শত শত মানুষ গাদাগাদি করে চলাচল করছে। অধিকাংশরই মুখে মাস্ক নেই। তাই বাধ্য হয়েই মেয়েকে নিয়ে ফিরে যাচ্ছি।

জানতে চাইলে গাঙচিল জলকুটিরের মালিক শিমুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন খান জানান, আজ খোলা হয়েছে তবে আমি গিয়ে বন্ধ করে দিয়েছি। আমি সচেতন লোক বিধায় বন্ধ করে দিয়েছি।

এ ব্যাপারে সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাজাহারুল ইসলাম জানান, বিষয়টি খোঁজ নিয়ে যতদ্রুত সম্ভব ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category